দ্বীনের নসীহত

ইসলামী আলোয় আলোকিত হোক জীবন

ঈদের নামাযের জন্য জামাআত শর্ত-মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী

maxresdefault 1
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঈদের নামাযের জন্য জামাআত শর্ত। তাই ইমাম ব্যতীত কমপক্ষে তিনজন মুসল্লী হলে ঈদের নামায জামাআতে আদায় করা যাবে। ‌১ম রাকাতের পূর্বে ও ২য় রাকাতের পরের অতিরিক্ত তাকবীরগুলো সহ যথা নিয়মে দুই রাকাত ঈদের নামায আদায় করবেন। ঈদের নামাযের পরে খুতবাহ দেয়া সুন্নাত‌। নিয়মমতো খুতবাহ দিতে সক্ষম না হলে প্রথম খুতবায় সূরাহ ফাতিহা, দুরুদ শরীফ ও রাব্বানা আতিনা ফিদ্দুনিয়া…পড়লে চলবে। মাঝখানে মিন্বর না থাকাবস্থায় একটি চেয়ার টুল বা বক্সের উপর তিনবার সুবহানাল্লাহ বলা পরিমাণ বসে, আবার দাঁড়িয়ে দ্বিতীয় খুতবায় সূরাহ আন নাসর অর্থাৎ ইযা জাআ সূরাটি পাঠ করে শেষে দরূদ শরীফ পড়লেও চলবে। কিংবা খুৎবাহ পাঠ না করলেও ঈদের নামায আদায় হয়ে যাবে। কেননা, খুৎবাহ পাঠ ফরজ বা ওয়াজিব নয়, বরং সুন্নাত–যা আদায় না হলেও নামায হবে।

কেউ কোনো কারণে জামাআতের সাথে ঈদের নামায আদায় করতে না পারলে, ঈদের নামাযের কাজা হিসেবে নয় বরং নফল হিসেবে বাড়িতে দুই বা চার রাকআত নামায আদায় করতে পারবেন। সেই ক্ষেত্রে অতিরিক্ত তাকবীর বা খুতবাহ লাগবে না। যেহেতু এটা ঈদের নামায নয়, তার কাজাও নয়। বরং ঈদের নামায ফউত হওয়াতে এটা নফল নামায হিসেবে পড়া হচ্ছে।

মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী  এর ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে নেওয়া।

 


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •