দ্বীনের নসীহত

ইসলামী আলোয় আলোকিত হোক জীবন

করোনায় মেক্সিকোতে ৫৫০০ ইসলাম গ্রহণ

244272284 8
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্যের ৫৫০০ আদিবাসীর ইসলাম গ্রহণ!

ইসলামের অগ্রগতি মেক্সিকোতে। ১৯৮৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত মেক্সিকোর দক্ষিণাঞ্চলীয় চিয়াপাস রাজ্যের ৫৫০০ জন আদিবাসী ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্যের নওমুসলিমদের সংখ্যা গত দশকে ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, কারণ তারা শান্তি ও সহাবস্থানের বার্তাকে স্বাগত জানিয়েছে।

লেবানন, সিরিয়া এবং এমনকি স্পেন থেকে মুসলিম অভিবাসীদের আগমন, মেক্সিকোতে ইসলাম প্রচারে ব্যাপক অবদান রেখেছে। মেক্সিকোর অন্যতম একটি মুসলিম কেন্দ্র হচ্ছে চিয়াপাস রাজের দক্ষিণাঞ্চলের ইসলামিক সেন্টার।তাজুতাজিল নাম প্রসিদ্ধ গোত্রের লোকেরা সেদেশের সান ক্রিস্টোবাল দে লাস কাসাস শহরে বসবাস করে।

এই গোত্রের অধিকাংশ নাগরিকই ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। তাজুতাজিল গোত্রের আদিবাসীদের সংখ্যা প্রায় তিন লাখ হবে। এই গোত্রের লোকেরা মধ্যে আমেরিকান প্রাচীন মায়া সাম্রাজ্যের অনুসারী। এই গোত্রটি মধ্য আমেরিকান প্রাচীন মায়া সাম্রাজ্য থেকে সৃষ্টি হয়েছে। উল্লেখ্য, উত্তর আমেরিকার একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় সাংবিধানিক প্রজাতন্ত্র।

এই দেশের উত্তর সীমান্তে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র; দক্ষিণ ও পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর; দক্ষিণ-পূর্বে গুয়াতেমালা, বেলিজ ও ক্যারিবিয়ান সাগর এবং পূর্বে মেক্সিকো উপসাগর অবস্থিত।প্রায় দুই মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত মেক্সিকো আয়তনের বিচারে দুই আমেরিকার পঞ্চম বৃহত্তম রাষ্ট্র তথা বিশ্বের চতুর্দশ বৃহত্তম স্বাধীন রাষ্ট্র।

দেশের জনসংখ্যা প্রায় ১০৯ মিলিয়ন, জনসংখ্যার বিচারে মেক্সিকো বিশ্বের একাদশ জনবহুল রাষ্ট্র। মেক্সিকো যুক্তরাষ্ট্র একত্রিশটি রাজ্য ও রাজধানী শহর একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় জেলা নিয়ে গঠিত।

স্ত্রী করোনায় মৃত শুনে অক্সিজেন মাস্ক পরলেন না স্বামী, একদিনেই দুইজনের মৃত্যু

১৯৫০ এর দশক থেকে দাম্পত্য জীবন চলছিল তাদের। দীর্ঘ ৬৩ বছর একসঙ্গে কাটানোর পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন উভয়ে। এরপর বয়স্ক স্বামী জানতে পারেন, করোনা তার ৮৩ বছর বয়সী সঙ্গীনী মেরি’র প্রাণ কেড়ে নিয়েছে।

এই খবরে এতটাই ভেঙে পড়েছিলেন ৯০ বছর বয়সী বিল ডর্টনাল যে, নিজের অক্সিজেন মাস্ক পরে থাকতে অস্বীকৃতি জানান।
জানা গেছে, তারা দু’জনেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়ার পর যুক্তরাজ্যের সাউদাম্পটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। দু’জনে একই দিনে না ফেরার দেশে চলে যান।

দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে পরিচ্ছন্নতা কর্মীর দায়িত্ব পালন করেছেন বিল ডর্টনাল। মিলব্রুক এলাকায় সপরিবারে বাস করতেন।

প্রথমে স্ত্রী মেরি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরপর বিল ডর্টনাল স্ট্রোক করে ওই হাসপাতালে ভর্তির পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত হন।
জানা গেছে, শুরুতে উভয়েই ঠান্ডাজনিত রোগে ভুগছিলেন। মেরিকে হাসপাতালে ভর্তির পরেও অবস্থান উন্নতি ঘটেনি। দিনকয়েকের মধ্যেই তিনি মারা যান। এ খবর পেয়ে ওইদিনই অক্সিজেন মাস্ক পরতে আর রাজি হননি তার স্বামী। পরে একইদিনে তারও মৃত্যু হয়।

সূত্র : ডেইলি ইকো


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •