দ্বীনের নসীহত

ইসলামী আলোয় আলোকিত হোক জীবন

শাইখ “মুহাম্মদ ঈদ আব্দুল্লাহ আল-হুসাইনী আমাদের মাঝে আর নেই

96941044 239012850740025 306973750870409216 n
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শাইখ “মুহাম্মদ ঈদ আব্দুল্লাহ আল-হুসাইনী আশ-শাফেয়ী আন-নকশাবন্দী” গতকাল বাদ আসর ইন্তেকাল করেন।
তিনি ছিলেন নবীবংশ উদ্ধত ইসলামের উজ্জ্বল এক নক্ষত্র। শরীয়ত ও তরিকত উভয়টা একত্র কারী একজন বড় আরব শায়েখ। তার বাবা মা উভয়েই নবী বংশ হুসাইনী।

জন্ম ও বেড়ে ওঠাঃ


ফিলিস্তিনের দক্ষিণাঞ্চলে ১৩৫৭হিজরী মোতাবেক ১৯৩৬খ্রিস্টাব্দে ঈদুল আযহার নামাজের কিছুক্ষণ পূর্বে, যখন মানুষ ঈদুল আযহার তাকবীর দিতে দিতে ঈদগার মাঠে যাচ্ছিলেন তখন জন্মগ্রহণ করেন। তাই তাকে ঈদ বলে নামকরণ করা হয়।
সাত বছর বয়সে তিনি আল-হামরা ইউনিভার্সিটি তে শিক্ষা সূচনা করেন। সেখানে তিনি ইন্টার কমপ্লিট করেন। ১৯৪৮সালের ফিলিস্তিনে ইহুদি ও আরবদের মাঝে চূড়ান্ত দ্বন্দ্বের সময় তিনি তার পরিবারের সাথে লেবানন হয়ে দামেস্ক চলে যান। তিনি শৈশব থেকেই তাসাউফের খিরকা ধারী ছিলেন। গুনা থেকে ছিলেন অনেক দূরে।
এরপর দামেস্কের বড় বড় শাইখদের হতে ইসলামিক অসংখ্য বিষয়ের জ্ঞান আহরণ করেন। যাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যঃ ১: শাইখ আব্দুল-হাকিম মনির। ২:শাইখ সালেহ আক্কাদ। ৩:শাইখ হামদী সাফারজ্বালানী প্রমুখ। তিনি কুরআন, হাদিস, তাফসীর, ফিকাহ, মানতিক, সাহিত্য, তাছাউফ ইত্যাদি আরো অনেক শাস্ত্রে পান্ডিত্য অর্জন করেন।

কর্মজীবনঃ

কর্মজীবনে তিনি জামিউল-উমাবী/উমাবী ইউনিভার্সিটির দক্ষিনে আল-আখনাইয়া মাদরাসায় পাঠদান করতেন।
দামেস্কের অসংখ্য জামে মসজিদে তিনি বক্তব্য দিয়েছেন। কন্টিনিউ তাসাউফের মজলিস করতেন।
অগনিত মানুষের জীবনে তিনি আমূল পরিবর্তন আনেন।
এরপর তিনি সেখান থেকে ১৯৭৩সালে দুবাই চলে যান। সেখানেও তিনি দামেস্কের অনুপাতে আত্মশুদ্ধি/তাসাউফের মজলিস কন্টিনিউ চালিয়ে যান।
তার প্রধান কর্মই ছিল আত্মশুদ্ধি করণ, সমাজ থেকে বাতিল দূর করন, প্রাশ্চাত্য চিন্তা ধারা অপসারণ করন। কুরআন সুন্নাহর প্রচার করন। এবং অপপ্রচার বন্ধ করন। এই ভাবে তিনি একটি বিশাল সুশীল সমাজ গড়ে তুলেন।
তাঁর ব্যক্তিত্ব দেখেই মানুষ সর্বদা আকৃষ্ট হতেন। তার প্রতিটি হরকত/নড়াচড়া ও ছিল হেকমত পূর্ণ। তার সামনে যেকেউ বসত পরিপর্তন হয়ে যেত। যেন সেই পূর্ব যুগের কোন মনীষীর সামনে বসা। এই আধ্যাত্মিক লাইনে তিনি অসংখ্য মানুষের আত্মা শোধন করেন।

মৃত্যুঃ

১৫রমজান মোতাবেক ৮ই মে ২০২০ইং ৮৪বছর বয়সে দুবাইয়ে তার নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন। আদ-দাহদাহ কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
আল্লাহ তাআলা তাকে জান্নাত নসিব করুন।


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •